জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো, কর্মসংস্থান ব্যাংক লোন আপডেট

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো

বাংলাদেশের বেকার সমস্যা স্থায়ীভাবে সমাধানের লক্ষে কর্ম সংস্থান ব্যাংক এর মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার শিক্ষিত বেকার ও অর্ধবেকারদের জন্য নতুন ব্যবস্থা করেছেন। বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা র আওতায় প্রায় ২ লক্ষ তরুন বেকার ও অর্ধ বেকারদের জন্য সরকার এই লোনের ব্যবস্থা রেখেছেন। তাই বর্তমানে শিক্ষিত যুবক সমাজের চাইলে খুব সহজেই ব্যাংক থেকে সহজ শর্তে লোন নিয়ে নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারেন অথবা ছোট ব্যবসা কে বড় করার জন্য ইনভেস্ট করতে পারেন।

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো
ছবি – জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো

যারা আমাদের কাছে জানতে চান জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাব আজকে আমরা এই ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব। কর্মসংস্থান ব্যাংক লোন আপডেট নিয়ে মূলত আজকের আলোচনায় সাজানো হয়েছে।

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কি

মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে আমাদের প্রথমে জানতে হবে জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন আসলে কি। সাধারণত কোন ব্যক্তি যখন ব্যাংকের কাছ থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা জমা নেয় তখন একটা জামানত দিতে হয় অর্থাৎ ব্যাংকের কাছে আপনার ব্যক্তিগত মালিকানাধীন কিছু সম্পদ জামানত রাখতে হয় যাতে করে কোনো কারণে আপনি টাকা দিতে ব্যর্থ হলে ব্যাংক সেই নির্দিষ্ট সম্পদ বাজেয়াপ্ত করতে পারে।

কিন্তু জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন নিতে গেলে আপনার কোন কিছু জমা রাখতে হবে না। খুব সহজ শর্তে ঝামেলা ছাড়াই ব্যাংক আপনাকে লোন দেবে। তবে এই ক্ষেত্রেও কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে। ব্যাংকে টাকা দেয়ার আগে অবশ্যই যাচাই করবে আপনি কাজ করে সেই টাকা পরিশোধ করার মত ক্ষমতা রয়েছে কিনা। নিচে আমরা এই ব্যাপারে আরও বিস্তারিত আলোচনা করব

জামানত ছাড়া কোন ব্যাংক লোন দেয়

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো এই ব্যাপারে জানতে হলে আমাদের প্রথমে জানতে হবে কোন কোন ব্যাংক বর্তমানে এ জামানত ছাড়া আন্দোলন দিচ্ছে। বর্তমানে বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি ব্যাংক জামানত ছাড়া লোন দিচ্ছে তবে এর মধ্যে সবচেয়ে সহজ শর্তে লোন দিচ্ছে কর্মসংস্থান ব্যাংক। 

বর্তমানে কর্মসংস্থান ব্যাংক বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা হতে প্রতি লক্ষ তরুণ বেকার ওয়াটার জন্য লোন দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে। সর্বশেষ ২০২২-২৩ অর্থবছরে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক পরিকল্পিত একটি প্রকল্প হচ্ছে বঙ্গবন্ধু যুব নীতিমালা। এ নীতিমালার আওতায় দেশের শিক্ষিত তরুণ সমাজকে কর্মক্ষম করার জন্য খুব সহজ শর্তে এবং স্বল্প সুদে ঋণ দেয়া হবে।

বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা কি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দেশের শিক্ষিত বেকার অর্ধ বেকার তরুণদের উপার্জন বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্দেশ্যে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত যুবকদের জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে ২০-১২-২০১৯ তারিখে “বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা” প্রণয়ন করা হয়।

বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালায় উদ্দেশ্য

  • দেশের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষিত বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি
  • উৎপাদনমুখী অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে উৎসাহিত করেন
  • দেশে নারী উদ্যোক্তা তৈরি করা এবং নারী উদ্যোক্তাদের অগ্রাধিকার দেয়া
  • দারিদ্রতা বিমোচনে সাহায্য করা
  • জিডিপিতে যুবকদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করে

বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা নিয়ে বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কারা পাবেন

যেহেতু এটি একটি সরকারি প্রজেক্ট ব্যাংক জামানত না লাগলেও সরকারের বেধে দেখা কিছু নির্দিষ্ট শর্ত রয়েছে। এই পর্যায়ে জামানত ছাড়াআমরা  ব্যাংক লোন কারা পাবেন বা জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন পাওয়ার যোগ্যতা গুলো দেখে নেব।

  • ঋণ গ্রহীতাকে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে
  • যে শাখা থেকে লোন নেবে সে এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। স্থায়ী বাসিন্দা না হলে একজন স্থায়ী বাসিন্দা কিলিনার গ্যারান্টার হতে হবে।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে ৫ম শ্রেনি পাশ হতে হবে।
  • ঋণ পেতে হলে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, বিসিক, বিডা, সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনসহ (এসডিএফ) অন্যান্য সরকার অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ থাকতে হবে।
  • বয়স সীমা ১৮ থেকে ৩৪ এর মধ্যে হতে হবে
  • ইতোপূর্বে কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান ঋণখেলাপি থাকলে এই লোন পাবেন না।

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো

অন্যান্য ব্যাংকের মতো কর্মসংস্থান ব্যাংক থেকে জামানত ছাড়া লোন নিতে একটি নির্দিষ্ট নিয়ম ফলো করতে হবে। একই সাথে যেহেতু এটি একটি সরকারি প্রজেক্ট তাই যাচাই বাছাইয়ের ক্ষেত্রে একটু সময় লাগতে পারে।

ঋণ নেয়ার জন্য প্রথমত উপরে আমরা যে যোগ্যতা গুলো নিয়ে আলোচনা করেছি তার সবগুলো থাকতে হবে। বয়স, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও উপরে উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে প্রশিক্ষণ নেয়ার সার্টিফিকেট থাকতে হবে। উপরের সবগুলো প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস যদি আপনার কাছে থাকে তাহলে আপনি ঋণের জন্য আবেদন করতে পারেন।

আপনার প্রশিক্ষণ অনুযায়ী ব্যাংকে লোনের জন্য আবেদন করবেন। এরপর ব্যাংক থেকে একটি পর্যবেক্ষক টিম সরাসরি পর্যবেক্ষণে আসবেন এবং যাচাই করবেন আপনি যে কাজের জন্য লোন নিতে চাচ্ছেন তা আসলে আপনি করতে পারবেন কিনা এবং তা করার যথেষ্ট যোগ্যতা আপনার হয়েছে কিনা। যদি সব ঠিক থাকে তাহলে আপনার প্রকল্প অনুযায়ী তারা বাজেট ঠিক করবে এবং বাজেট অনুযায়ী কত দিনে তা পরিশোধ করতে হবে তা নির্ধারিত হবে।

প্রকল্পের ধারণা অনুযায়ী উৎপাদিত পণ্য ও বাজারজাতকরণ ইত্যাদি বিবেচনা করে ঋণ পরিশোধের সময় নির্ধারিত হবে। ঋণ পরিশোধের জন্য সাধারণত মাসিক/ ত্রৈমাসিক/ ষান্মাসিক ও বাৎসরিক সময় নির্ধারণ করা হয়।

নীড় ঋণ নেয়ার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন

কর্মসংস্থান ব্যাংক কত টাকা লোন দেয়

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো

উপরে আমরা জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। একই সাথে জামানত ছাড়া লোন নেয়ার জন্য কি কি ডকুমেন্টস লাগবে তা উল্লেখ করেছি।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে জামানত ছাড়া কর্মসংস্থান ব্যাংক কত টাকা লোন দেবে। কত টাকা লোন দিবে সেটি নির্ভর করে সম্পূর্ণরূপে আপনার প্রকল্পের উপরে। আপনি লোন নিয়ে যে কাজটি করতে চাচ্ছেন সেটি যদি ছোট হয় তাহলে লোনের পরিমাণ ছোট হবে আবার যে কাজটি করতে চাচ্ছেন সেটা যদি বড় পরিসরে হয় সে ক্ষেত্রে লোনের পরিমাণ বেশি হবে।

বর্তমানে কর্মসংস্থান ব্যাংক সর্বনিম্ন ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জামানত ছাড়া লোন দিয়ে থাকে।

আরো পড়ুন – গরুর খামার করতে ব্যাংক লোন, গবাদি পশু পালন ঋণ

কর্মসংস্থান ব্যাংক লোন সুদের পরিমাণ কত

সর্বশেষ ২০২২-২৩ অর্থবছরের নিয়ম অনুযায়ী সুদের হার ৮% সরল সুদ এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে কিস্তি খেলাপির ক্ষেত্রে এই সুদের হার ১০% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

অর্থাৎ টাকা দেয়ার সময় আমাকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ সময় বেঁধে দেবে ব্যাংক কোন কারণে যদি ওই নির্দিষ্ট সীমা অতিক্রম করেন বা কিস্তি দিতে নিয়মিত দেরি হয় সে ক্ষেত্রে কিস্তি খেলাপির জন্য আপনার সুদের পরিমাণ বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই ঋণ নেয়ার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে ওই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনি সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দিতে পারবেন কিনা।

আরো পড়ুন – গরুর খামার করতে ব্যাংক লোন, গবাদি পশু পালন ঋণ

জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন নিতে জামিনদার লাগবে

যেমনটা আমরা বলেছিলাম কর্মসংস্থান ব্যাংক থেকে বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ নীতিমালা আওতায় লোন নেয়ার ক্ষেত্রে কোনো জামানতের দিতে হবে না। তবে একজন জামিনদার বা গ্যারান্টার লাগবে যে আপনার অবর্তমানে কোন সমস্যা হলে টাকা পরিশোধের সক্ষমতা রাখবে।

এক্ষেত্রে আপনার পরিবারের কেউ যেমন বাবা-মা-ভাই-বোন আপনার জামিনদার হতে পারে অথবা এলাকার যে কোন স্থায়ী বাসিন্দা তৃতীয় কোন ব্যক্তি আপনার ঝামেলা হতে পারে।

জামিনদারের ব্যক্তিগত সম্পত্তি থাকতে হবে এটা নিশ্চিত করার জন্য যে আপনার অবর্তমানে জামিনদার সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ করতে পারবে।

তবে ভয়ের কিছু নেই, এটি শুধুমাত্র সরকারি নিয়ম। আপনি যদি নিজে কাজ করে সময়মতো সম্পূর্ণ টাকা পরিশোধ করতে পারে সে ক্ষেত্রে জামিনদারের কোন ঝামেলা হবে না।

কর্মসংস্থান ব্যাংক লোন আপডেট

উপরে আমরা জামানত ছাড়া ব্যাংক লোন কিভাবে পাবো, কর্মসংস্থান ব্যাংক লোন আপডেট নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। আশা করছি ব্লগ টি আপনাদের ভাল লেগেছে। ব্লগটি ভাল লাগলে আপনার বন্ধু-বান্ধব তুমিসাথে শেয়ার করতে পারেন। আমরা নিয়মিত ঋণ বিষয়ক বিভিন্ন পোস্ট করে থাকি ওয়েবসাইটের অন্যান্য পোস্ট চাইলে ঘুরে দেখতে পারেন।

এছাড়া আপনার কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট বক্সে করতে পারেন আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব। পরবর্তি পোষ্ট পড়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে এখানে শেষ করছি ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন – প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক লোন আবেদন নিয়ম 2022

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

Leave a Comment