কম দামে পানির ফিল্টার
ছবি: কম দামে পানির ফিল্টার

কম দামে পানির ফিল্টার। গরম ও ঠান্ডা পানির ফিল্টার দাম। ২০০০ টাকার মধ্যে পানির ফিল্টার

কম দামে পানির ফিল্টার

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা। আমাদের সুস্থ থাকার জন্য যেসব জিনিস সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন পড়ে তা হলো পুষ্টিকর খাবার ও পরিষ্কার পানি। বর্তমানে চারদিকে এত পরিমানে দূষনের পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে যে পরিষ্কার পানি পাওয়া আমাদের জন্য অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই গ্রামে বা শহরে সবাই এখন পানির ফিল্টার ব্যবহারের দিকে ঝুকছে। কিন্তু কোন পানির ফিল্টারটি ভালো হবে তা না জানায় বাজার থেকে বেশি দামে খারাপ পানির ফিল্টার কিনে আনছে অনেকেই।

কম দামে পানির ফিল্টার
ছবি: কম দামে পানির ফিল্টার

আজকে আমরা আলোচনা করবো কম দামে পানির ফিল্টার কেনার কিছু টিপস নিয়ে। আজকের ব্লগে আমরা চেষ্টা করবো ভালো কিছু পানির ফিল্টারের সন্ধান দিতে যা আপনার ও আপনার ফ্যামিলির জন্য হবে ১০০% নিরাপদ। চলুন তাহলে কম দামে পানির ফিল্টার নিয়ে আমাদের আজকের আলোচনা শুরু করা যাক।

পানির ফিল্টার কত ধরনের হয়?

বাংলাদেশের বাজারে মূলত তিন ধরনের পানির ফিল্টার পাওয়া যায়। তিন ধরনের পানির ফিল্টারের কাজ একই হলেও ফিল্টারিং এর ধরন ও দামে যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে। চলুন দেখে নেয়া যাক কোন সে তিন ধরনের পানির ফিল্টার

  1. সাধারন কালো পাথরের পানির ফিল্টার – সাধারনত আমরা দুই পার্টের যে পানির ফিল্টার গুলো ব্যবহার করি সেগুলো কালো পাথরের পানির ফিল্টার হিসেবে পরিচিত। দামের দিক থেকে কিছুটা কম এবং ফিল্টারের উপরের চেম্বারে থাকে কালো পাথর এবং নিচের পার্টে পরিশোধিত পানি জমা হয়।
  2. পিউরিং কিট পানির ফিল্টার – এ ধরনের পানির ফিল্টার বর্তমানে বাংলাদেশে খুবই জনপ্রিয়। ইউনিলিভার ও আরএফএলের মত কোম্পানি বাজারে নতুন নিয়ে এসেছে এই পানির ফিল্টার গুলো। এ ধরনের পানির ফিল্টারের উপরের পার্টে এক বিশেষ ধরনের কিট থাকে যা পানি বিশুদ্ধ করে কোন বিদ্যুত ছাড়া এবং নিচের চেম্বারে পরিষ্কার পানি জমা হয়। বর্তমানে কম দামের মধ্যে এই পানির ফিল্টারগুলো বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।
  3. ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার – ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার হচ্ছে যেসকল ফিল্টার বিদ্যুত সংযোগের মাধ্যমে পানিতে বিদ্যমান জার্ম সমূহ ধ্বংশ করে।

পানির ফিল্টার দাম কত

বর্তমানে আজারে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন রকম ফিল্টার পাওয়া যাচ্ছে। সাধারনত বর্তমানে ১৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকার মধ্যে বিভিন্ন রকম ফ্যামিলি ফিল্টার বাজারে পাওয়া যাচ্ছে।  আমরা এখন বাজারের নামকরা কিছু ফিল্টারের মডেল ও দামসহ দেয়ার চেষ্টা করবো যা আপনি আপনার ফ্যামিলির জন্য নিশ্চিন্তে ক্রয় করতে পারেন।

মিয়াকো পানির ফিল্টার

আপনি যদি জানতে চান কমদামে সবচেয়ে ভালো পানির ফিল্টার কোনটি তাহলে আমাদের উত্তর হবে মিয়াকো পানির ফিল্টার। বর্তমানে ফিল্টারের বাজারের বড় একটি অংশ মিয়াকোর দখলে। চাইনিজ কোম্পানিটি বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে দুইটি সাইজের ফিল্টার বিক্রি করছে।

  • ১৫ লিটার মিয়াকো পানির ফিল্টারের দাম ১৭০০ টাকা
  • ২০ লিটার মিয়াকো পানির ফিল্টারের দাম ২৫০০ টাকা

সিঙ্গার পানির ফিল্টারের দাম

বর্তমানে সিঙ্গার কোম্পানি ও বাজারে বিভিন্ন সাইজের ও বিভিন্ন কোয়ালিটির ফিল্টার বাজারে আনছে। তবে বর্তমানে সিঙ্গার ডাবল চেম্বারের দুটি ফিল্টার বাজারে ব্যাপক জনপ্রিয়। নিচে আমরা সিঙ্গার পানির ফিল্টারের দাম দেখার চেষ্টা করছি।

  • ১৫ লিটার সিঙ্গার পানির ফিল্টারের দাম ২০০০ টাকা
  • ২০ লিটার সিঙ্গার পানির ফিল্টারের দাম ২৭০০ টাকা

নোভা পানির ফিল্টারের দাম

বাংলাদেশে সর্বপ্রথম সবার কাছে যে কোম্পানিগুলো পানির ফিল্টার পৌছে দিয়েছিলো নোভা কোম্পানি সে কোম্পানিগুলোর মধ্যে একটি। বাজারে অন্যান্য কোম্পানির তুলনায় নোভা ফিল্টারের দাম তুলনামূলক কিছুটা কম এবং দামের তুলনাইয় তাদের ফিল্টারগুলো অনেক কোয়ালিটিফুল। চলুন দেখে নেয়া যাক নোভা পানির ফিল্টারের দাম।

  • ১৫ লিটার নোভা পানির ফিল্টার মাত্র ৮০০ টাকা
  • ২০ লিটার নোভা পানির ফিল্টার মাত্র ১০৫০ টাকা
  • ২২ লিটার নোভা পানির ফিল্টার মাত্র ১৩০০ টাকা
  • ৩০ লিটার নোভা পানির ফিল্টার ১৫৫০ টাকা
  • ৩৬ লিটার নোভা পানির ফিল্টার ১৬৫০ টাকা

ইভা পিউর পানির ফিল্টারের দাম

ইভা পিউর বাংলাদেশের বাজারে তুমুল জনপ্রিয় ও বিশ্বস্ত একটি পানির ফিল্টার সাপ্লাইয়ার। বর্তমানে বাজারে যেসব কোম্পানির ফিল্টার সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয় ইভা পিউর তার মধ্যে অন্যতম সেরা একটি কোম্পানি। নোভার মত ইভা পিউর ফিল্টারগুলো তুলনামূলক কম দামে ভালো কোয়ালিটি প্রোভাইড করার জন্য বিখ্যাত। চলুন দেখে নেই ইভা পিউর পানির ফিল্টারের দাম

  • ২৬ লিটার ইভা পিউর পানির ফিল্টার ১৪০০ টাকা
  • ৩০ লিটার ইভা পিউর পানির ফিল্টার ১৫০০ টাকা
  • ৩৬ লিটার ইভা পিউর পানির ফিল্টার ১৮০০ টাকা

মাৎসু পানির ফিল্টারের দাম

মাৎসু কোম্পানিটি বাংলাদেশের বাজারে খুব বেশি পরিচিত না হলেও বিশ্বের অনেক দেশে কোম্পানিটি তাদের ফিল্টার বিক্রি করে থাকে। বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে তাদের একটি মাত্র পানির ফিল্টার কিনতে পাওয়া যাচ্ছে। ২৪ লিটার মাৎসু পানির ফিল্টারটির দাম ২৮০০ টাকা। যেহেতু মাৎসু  ব্র্যান্ডের পানির ফিল্টার বাংলাদেশের বাজারে কম পাওয়া যায় তাই আপনি মাৎসু ফিল্টারটি কনতে চাইলে অনলাইন অর্ডার করতে পারেন। দারাজ, পিকাবো সহ অনেক অনলাইন শপে ফিল্টারটি কনতে পেয়ে যাবেন।

সেনির পানির ফিল্টারের দাম

সেনির পানির ফিল্টার কম্পানিটিও মাৎসুর মত বাংলাদেশে অতটা জনপ্রিয় নয় তবে এই কোম্পানির ফিল্টারগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সফলভাবে তারা বিক্রি করছে। বর্তমানে বাংলাদেশে তাদের একটি মডেল কিনতে পাওয়া যাচ্ছে। ২৮ লিটার সেনির পানির ফিল্টারের দাম ১৮০০ টাকা। আপনি চাইলে অনলাইন বিভিন্ন শপ থেকে ক্রয় করতে পারেন ফিল্টারটি।

জেসিএল পানির ফিল্টারের দাম

জেসিএল কোম্পানিটির বিশেষত্ব হচ্ছে তুলনামূলক কমদামে ভালো কোয়ালিটির পানির ফিল্টার প্রোভাইড করা। আপনার বাজেট যদি কম হইয় এবং কম দামে পানির ফিল্টার কিনতে চান সেক্ষেত্রে আপনি জেসিএল কোম্পানির পানির ফিল্টার দেখতে পারেন।

  • ২০ লিটার জেসিএল পানির ফিল্টারের দাম ৭০০ টাকা
  • ৩২ লিটার জেসিএল পানির ফিল্টারের দাম ১২০০ টাকা

ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার দাম

উপরে আমরা যেসব ফিল্টারের কথা উল্লেখ করেছি তা নরমাল দুই চেম্বারের ফিল্টার। কিন্তু আপনি যদি ইলেকট্রিক পানির ফিল্টারের দাম জানতে চান সেক্ষেত্রে বর্তমানে বাজারে বেশ কয়েকটি কোম্পানি ইলেকট্রিক ফিল্টার বাজারে বিক্রি করছে। ইলেকট্রিক চুলা গুলো সাধারনত

কেন্ট ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার

কেন্ট ইলেকট্রিক পানির ফিল্টারটি হচ্ছে দেয়ালে ফিটিং করা যায় এমন পানির ফিল্টার। বর্তমানে কেন্ট ইলেকট্রিক পানির ফিল্টারটি বাজারে ১৪ হাজার টাকায় কিনতে পেয়ে যাবেন। এটি ক্রয় করার পর সাধারনত কোম্পানি থেকে লোক এসে আপনার বাসায় দেয়ালে ফিটিং করে দিবে।

পিওরইট ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার

পিউরইট এর তিন ধরনের ইলেকট্রিক পানির ফিল্টার বাজারে রয়েছে। ১৮ হাজার থেকে ২৬ হাজারের মধ্যে এই সব কিনতে পেয়ে যাবেন। সাধারনত শোরুম থেকে ফিল্টারগুলো কিনতে পারবেন। অথবা ১৬৬২৭ এই নাম্বারে কল করে আপনার বাসায় লোকেশন বললে ইউনিলিভার থেকে লোক এসে দেয়ালে ফিটিং করে দিয়ে যাবে। বিস্তারিত জানতে এই ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

পানির ফিল্টার কোনটা ভালো

উপরে আমরা কম দামে পানির ফিল্টার নিয়ে আলোচনা করেছি। এক্ষেত্রে অনেকগুলো ব্র্যান্ডের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। অনেকে আমাদের কাছে জানতে চান পানির ফিল্টার কোনটা ভালো হবে।

  • আপনার বাজেট যদি ১০০০ হাজারের মধ্যে হয় তাহলে নোভার ১৫ লিটার পানির ফিল্টার টি নিতে পারেন।
  • আপনার বাজেট যদি ১৫০০ টাকা হয় সেক্ষেত্রে ইভা পিউর এর ৩০ লিটারের পানির ফিল্টারটি ক্রয় করতে পারেন।
  • আর যদি আপনি ইলেকট্রি পানির ফিল্টার ক্রয় করতে চান সেক্ষেত্রে আমরা সাজেস্ট করবো আপনি আপনার বাজেট অনুযায়ী পিউরইট কোম্পানির পানির ফিল্টারটি ক্রয় করতে পারেন।

২০০০ টাকার মধ্যে পানির ফিল্টার

অনেকেই আমাদের কাছে জানতে চান ২০০০ টাকার মধ্যে পানির ফিল্টার কোনটা ভালো হবে। বর্তমানে বাজারে ২০০০ টাকার মধ্যে অনেকগুলো পানির ফিল্টার পাওয়া যাচ্ছে তবে আমাদের সাজেশন হচ্ছে আপনার বাজেট যদি হয় তাহলে ইভা পিউর কোম্পানির ৩৬ লিটার ফিল্টারটি নিতে পারেন। বড় ফ্যামিলির জন্য ৩৬ লিটারের এই ফিল্টারটি যথেষ্ট হবে এবং দাম অনুযায়ী ফিল্টারটি কোয়ালিটি যথেষ্ট ভালো। তাই এই বাজেটে ৩৬ লিটারের ইভা পিউর ফিল্টারটি আপনার জন্য ভালো চয়েস হবে।

গরম ও ঠান্ডা পানির ফিল্টার দাম

বর্তমানে বাংলাদেশের মার্কেটে বিভিন্ন চাইনিজ কোম্পানির গরম ও ঠান্ডা পানির ফিল্টার পাওয়া যাচ্ছে। অর্থাৎ আপনি নরমাল পানি দিবেন এবং ফিল্টারটি সয়ংক্রিয়ভাবে পানি বিশুদ্ধ করে গরম ও ঠান্ডা দুইটি ভাগে ভাগ করবে। বর্তমানে গরম ও ঠান্ডা পানির ফিল্টার বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ১৫ হাজার টাকার আশে পাশে এবং সাথে ৩ বছরের অফিশিয়াল ওয়ারেন্টি পেয়ে যাবেন। তবে এই ধরনের ফিল্টার কেনার পূর্বে অবশ্যই গ্যারান্টি ওয়ারেন্টি ভালোভাবে চেক করে নিবেন।

পানির ফিল্টার কোথা থেকে কিনবেন

আপনি চাইলে অনলাইন বা অফলাইন দুইভাবেই পানির ফিল্টার ক্রয় করতে পারেন। অনলাইন থেকে ক্রয় করলে দারাজ, পিকাবো কিংবা অথবা ডট কম থেকে ক্রয় করতে পারেন। এছাড়া অফলাইন থেকে ক্রয় করতে চাইলে ঢাকার নিউমার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, মিরপুর, উত্তরা, গুলিস্তান, রামপুরা, স্টেডিয়াম মার্কেটসহ বিভিন্ন জায়গায় ফিল্টারগুলো কিনতে পেয়ে যাবেন। অফলাইনে ক্রয়ের পূর্বে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

মন্তব্য

উপরে আমরা চেষ্টা করেছি কম দামে পানির ফিল্টার নিয়ে আলোচনা করতে। আশা করি পোষ্টটি আপনার উপকারে এসেছে। ভালো লাগলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ

Easy Teching

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

This Post Has One Comment

Leave a Reply