মোফা কি? সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম, মোফা কখন করতে হয়

সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম

বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব কাজের ভিসা করার জন্য অনেকগুলো ধাপ পার হতে হয়। এই ধাপ গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি ধাপ মোফা হচ্ছে আবেদন করা। সঠিকভাবে মোফা আবেদন না করলে আপনার ভিসা স্ট্যাম্পিংয়ের জন্য সৌদি এম্বাসি তে পাঠানো যাবে না। তাই মোফা কি, মোফা কিভাবে করতে হয়, সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম এসব কিছু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব আজকে ব্লগে।

মোফা চেক করার নিয়ম
ছবি – মোফা চেক করার নিয়ম

মোফা কি

আপনারা সকলেই জানেন সৌদি আরবের ভিসা আবেদনের জন্য মেডিকেল ফিটনেস রিপোর্ট জমা দিতে হয়। মেডিকেল চেকআপ করানোর পর রিপোর্ট নিয়ে আসার আগে মোফা আবেদন করতে হয়। মোফা হচ্ছে মেডিকেল রিপোর্ট এর সাথে পাসপোর্ট এর কানেকশন করানোর একটি বিশেষ আবেদন যা আপনার এজেন্সী করে দেবে। মেডিকেল চেকআপ হয়ে গেলে রিপোর্ট হানার সময় পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে অনলাইনে একটা আবেদন করতে হয় যাতে করে মেডিকেল রোপোর্টের সাতেহ পাসপোর্ট নাম্বার আপডেট করা যায়।

মেডিকেল চেকআপ করা হয়ে গেলে রিপোর্ট আনার আগে আপনাকে এজেন্সি থেকে অনলাইনে মোফা আবেদনের কপি মেডিকেলে গিয়ে জমা দিতে হবে। তারপর একদিনের মধ্যে মেডিকেল রিপোর্ট কে পাসপোর্ট নাম্বার এর সাথে অনলাইনে কানেক্ট করে দেয়া হয়। এরপর আপনি চাইলে মেডিকেলে রিপোর্টে নিয়ে আসতে পারবেন এবং এম্বাসিতে জমা দিতে পারবেন। অনলাইন মেডিকেল রিপোর্ট ঠিক করে নিয়ম জানতে এখানে ক্লিক করুন

মোফা আবেদন কেন করতে হয়

উপরে আমরা দেখেছি মোফা কি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে মোফা আবেদন কেন করতে হয়। মোফা আবেদনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে অনলাইনে ভিসা আবেদন আপডেট করা এবং ভিসা স্ট্যাম্পিং এর জন্য প্রস্তুত করা। আপনারা জানেন ভিসা স্ট্যাম্পিং এর জন্য এজেন্সিতে জমা দেয়ার আগে বেশ কিছু কাজ করতে হয়। যেমন অনলাইনে ভিসার জন্য আবেদন করতে হয়, মেডিকেল ফিটনেস রিপোর্ট নিতে হয় এবং পুলিশ ক্লিয়ারেন্স নিতে হয়। মোফা আবেদন হচ্ছে ভিসা এম্বাসিতে জমা দেয়ার আগে সর্বশেষ কাজ। মোফা আবেদন আপনাকে করতে হবে না এই কাজ আপনার এম্বাসি করে দিবে।

অর্থাৎ মেডিকেল রিপোর্ট কে পাসপোর্ট নাম্বারের সাথে অনলাইনে আপডেট করানোর জন্য আগে মোফা আবেদন করতে হয়। 

মোফা আবেদন কখন করতে হয়

মোফা আবেদন করতে হয় মেডিকেল টেস্ট করানোর পর ও স্ট্যাম্পিং এর জন্য আম্বাসিতে পাসপোর্ট জমা দেয়ার আগে। অর্থাৎ আপনি ভিসার জন্য পাসপোর্ট যখন কোন এজেন্সিতে জমা দিবেন তখন তারা অনলাইনে ভিসার আবেদন করবে এবং এবং আপনাকে মেডিকেল ফিটনেস টেস্ট করাতে বলবে। মেডিকেল ফিটনেস রিপোর্ট অনলাইনে পাসপোর্ট নাম্বারের সাথে আপডেট করানোর জন্য মোফা করা হয়। মেডিকেল টেস্ট করানো হয়ে গেলে আপনি যে এজেন্সিতে পাসপোর্ট জমা দিয়েছেন তারা মোফা আবেদন করে দিবে আপনার পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে।

সে মোফা আবেদন পত্র জমা দিতে হবে মেডিকেলে এবং সব ঠিক থাকলে মেডিকেল আপনার মোফা আবেদনে দেয়া পাসপোর্ট নাম্বার অনুযায়ী অনলাইনে মেডিকেল রিপোর্ট আপডেট করে দিবে। মেডিকেল রিপোর্ট ফিট আসছে কি না তা অনলাইনে খুব সহজেই চেক করে নিতে পারবেন।  অনলাইনে গামকা মেডিকেল রিপোর্ট চেক করতে এখানে ক্লিক করুন

সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম

যেমনটা আমরা বলেছি সৌদি মোফা আবেদন আপনাকে এসএমএস করে দেবে তাই অনলাইনে আপনাকে মফ আবেদন করতে হবে না। মেডিকেল ফিটনেস চেক করে আসার পর আপনার এজেন্সী অনলাইনে আবেদন করে দেবে। অনলাইনে আপনি চাইলে খুব সহজেই এম্বাসিতে ভিসা এসেছে কি না তা চেক করতে পারেন। অনলাইনে ভিসা চেক করতে চাইলে এই লিংকে প্রবেশ করুন https://visa.mofa.gov.sa/Enjaz/GetVisaInformation/Person অথবা এখানে ক্লিক করুন। প্রবেশ করার পর আপনার কিছু তথ্য দিতে হবে। তথ্য দেয়ার পর যদি ভিসা হয়ে থাকে তাহলে আপনার নাম চলে আসবে।

মোফা চেক করার নিয়ম
ছবি – অনলাইনে মোফা চেক করার নিয়ম

অনলাইনে ভিসা হয়েছে কি না চেক করুন। 

  • প্রথমে https://visa.mofa.gov.sa/Enjaz/GetVisaInformation/Person এই লিংকটি আপনার মোবাইলে কিংবা ল্যাপটপের ব্রাউজারে ওপেন করুন  অথবা এখানে ক্লিক করুন।
  • প্রথমে ওয়েবসাইটটি আরবি তে থাকবে। উপরে E বাটনে ক্লিক করে ইংলিশ করে নিতে পারেন।
  • তারপর প্রথম খালি ঘরে আপনার visa number দিতে হবে।
  • এরপরের খালি ঘরে sponsor id হিসেবে আপনার নিজের স্পন্সর আইডিটা দিবেন।
  • ৩ নাম্বার খালি ঘরে Visa issuing authority এর যায়গায় Dhaka দিতে হবে।
  • এবং শেষ ঘরে ছবিতে দেখানো ক্যাপচা কোডটা দিতে হবে।

সৌদি এম্বাসি থেকে যদি আপনার ভিসাটি স্ট্যাম্পিং হয় তাহলে সব তথ্য সঠিকভাবে দিলে আপনার নাম ও ভিসা নাম্বার দেখাবে।

ভিসা স্ট্যাম্পিং করতে এম্বাসিতে কত দিন সময় লাগে

আমাদের কাছে জানতে চায় মেডিকেল রিপোর্ট পাওয়ার পর এম্বাসিতে পাসপোর্ট জমা দিলে ভিসা স্টাম্পিং হতে কতদিন সময় লাগে। সাধারণত এম্বাসিতে ভিসা জমা দিলে ৭ দিনের মধ্যে স্টাম্প লেগে যায়। তবে অনেক সময় এজেন্সি জমা দিতে দেরী করে তাই চার সপ্তাহ পর্যন্ত লাগতে পারে। আপনারা হয়তো জানেন ভিসা এজেন্সি নির্দিষ্ট পাসপোর্ট প্রতি সপ্তাহে এম্বাসিতে জমা দিতে পারে। তাই যদি পাসপোর্ট এর পরিমাণ বেশি হওয়ায় এজেন্সি পাসপোর্ট জমা দিতে দেরী করে তাহলে আপনার ভিসা স্ট্যাম্পিং হতে সময় লাগবে। তবে সাধারনত ৭ থেকে ২১ দিনের মধ্যে ভিসায় স্ট্যাম্প লেগে যায়।

আপনি চাইলে খুব সহজে অনলাইনে বসে চেক করতে পারবেন ভিসা স্ট্যাম্পিং হয়েছে কি না। অনলাইনে ভিসা স্ট্যাম্পিং হয়েছে কি না দেখতে চাইলে এই লিংকে প্রবেশ করুন

এজেন্সি প্রতি সপ্তাহে কতটি পাসপোর্ট জমা দিতে পারে

পাসপোর্ট এজেন্সি প্রতি সপ্তাহে দশটি ভিসা সৌদি এম্বাসিতে জমা দিতে পারে। কোন কারনে এজেন্সি ব্যয় পাসপোর্ট এর পরিমাণ বেশি হয়ে গেলে হয়তো আপনার ভিসা স্ট্যান্ডিং স্ট্যাম্পিং হতে সময় লাগতে পারে। সাধারণত পাসপোর্ট এসেছে যদি শুনে রবিবারের মধ্যে পাসপোর্ট জমা দেয় সেক্ষেত্রে এক সপ্তাহের মধ্যে স্ট্যাম্পিং হয়ে যাবে।

মোফা করতে কত টাকা লাগে

মোফা করতে কোন খরচ হয় না। যেমনটা আমরা বলেছি মোফা সাধারনত পাসপোর্ট এজেন্সি থেকে করে দেয়া হয় সে ক্ষেত্রে এজেন্সি যদি টাকা নেয় সেই সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। সাধারণত এজেন্সি সম্পূর্ণ ভিসা প্রসেসিংয়ের জন্য একবারে কিছু টাকা নিয়ে নেয়। এর মধ্যে মোফা আবেদন করার খরচ হিসাব করে ফেলে। ওনলাইনে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে অনলাইনে আবেদন করা যায়। আবেদন করা হয়ে গেলে সে আবেদনপত্রটি নিয়ে আপনাকে মেডিকেলে জমা দিতে হবে এবং মেডিকেলে ফিটনেস রিপোর্ট নিয়ে এসে এম্বাসিতে জমা দিবেন।

অনলাইনে সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম নিয়ে আমরা উপরে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশ করছি আপনি নিজেই চেক পারবেন এজেন্সি পাসপোর্ট জমা দিয়েছে কি না এবং আপনার ভিসা স্ট্যাম্পিং হয়েছে কি না।

মোফা চেক করার নিয়ম

উপরে আমরা মোফা কি? সৌদি মোফা চেক করার নিয়ম, মোফা কখন করতে হয় এইসব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।আশা করছি মোফা নিয়ে আর কোন প্রশ্ন আপনার মধ্যে মোফা নিয়ে আর কোন সন্দেহ নেই। ভালো লাগলে আপনার বিদেশগামী প্রিয়জনদের সাথে পোস্ট টি শেয়ার করতে পারেন। ওয়েবসাইটে আমরা নিয়মিত প্রবাসীদের জন্য বিভিন্ন পোস্ট করে থাকে। চাইলে আমাদের ওয়েবসাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

Leave a Comment