ওয়ালটন এসির দাম ২০২২ | কমদামে সেরা এসি ২০২২

ওয়ালটন এসির দাম 2022

আমরা শীত-গরম উভয় সময়ে এসি ব্যবহার করে থাকি। আমরা অনেকেই এসির দাম বার নতুন মডেলের সম্পর্কে জানতে আগ্রহী।এসি ক্রয়ের পূর্বে আমাদের সবার কমন কিছু প্রশ্ন থাকে। যেমন, ওয়ালটন এসির দাম কেমন হবে, কতদিন টিক সই হবে, ওয়ারেন্টি গ্যারান্টি ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে চাই। আজ আমরা আপনাদের সঙ্গে এর সকল বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব ইনশাআল্লাহ। আশা করি আপনারা আমাদের এই কনটেন্ট পড়ে উপকৃত হবেন।

আমরা এসি কেনার আগে যে সকল বিষয় গুলো দেখি তাহলো বাসা টা কত বড়। রুমের সাইজ অনুযায়ী এসির সাইজ, দাম সব ই ভিন্ন ভিন্ন হবে। ওয়ালটন আমাদের দেশীয় ব্র্যান্ড। ওয়ালটন মূলত কমদামে ভালো পণ্য দিয়ে আমাদের মনে আস্থা করে নিয়েছে। সাধারনত ওয়ালটন আমাদের কম দামে ভালো মানের ইলেকট্রনিক পন্য দেয়ার চেষ্টা করে আর এটাই অয়ালটনকে সকলের কাছে গ্রহনযোগ্য করে তুলেছে।

ওয়ালটন এসি সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

আমরা যে এসি ই ক্রয় করি না কেন, কেনার আগে সেই কোম্পানির এসি সম্পর্কে জেনে নেয়া আমাদের জন্য অনেক বেশি জরুরি। কোন ব্যান্ডের এসি কেমন চলে, কোন ব্যান্ডের এসি সমস্যা করে এসকল বিষয় সম্পর্কেও জানা জরুরী। সব সময়ই দাম এর দিক বিবেচনা করে এসি কেনা উচিত নয়। অনেক কম দামে অনেক রকম এসি পাওয়া যায় যেগুলো দ্রুত সময়ে নষ্ট হয়ে যায়। তাই আমরা যে এসি কিনি না কেন তার সম্পর্কে জেনে নেওয়া জরুরী। এসি কেনার আগে যে সকল প্রশ্ন আমাদের মনে আসে তা হল।

দাম কেমন হবে, এসি ব্যবহার করা কেমন ঝামেলাপূর্ণ, এসির সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ কি ইত্যাদি। কোন ব্যান্ডের এসিতে কেমন বিদ্যুৎ অপচয় হয় ইত্যাদি প্রশ্ন আমাদের মনে জেগে থাকে। এ সকল বিষয়ের উত্তর দেবো ইনশাল্লাহ।

ওয়ালটন ইনভার্টার এসির মূল্য কত  ২০২২?

ওয়ালটন ইনভার্টার এসি 10 বছরের কম্প্রেসার গ্যারান্টি দিয়ে থাকেন এবং তার সাথে ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি দেওয়া হয়। বর্তমান বাজারে ওয়ালটন এর সফল পণ্য বাজারে রয়েছে তা হল।

স্মার্ট প্লাস ডুয়েল ডিফেন্ডার এসি

এই এসিটি 1 টন এর। ডুয়েল ডিফেন্ডার বলতে বোঝায় এন্টি ভাইরাল ফিল্টার রয়েছে। এটার মধ্যে ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া এবং বাসায় যদি কোন শ্বাসকষ্টের রোগী থাকে তাহলে তাদের যেন এসির কারণে কষ্ট না হয় তার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়েছে। আপনার বাসায় যদি অসুস্থ কেউ থাকে তার জন্য এই এসিতে কোন সমস্যা হবে না। এই এসে টির মূল্য প্রায় 48 হাজার টাকা

ওয়ালটন wsn- diamond 12a

ওয়ালটন wsn- diamond 12a এই এসি টির মূল্য প্রায় 38 হাজার 600 টাকা। ওয়ালটন wsn- diamond 12a এই এসি টির ওয়াট ক্ষমতা 3517। এসিটি 100 থেকে 120 স্কয়ার ফিট রুমের ভেতর লাগাতে পারবেন।

ওয়ালটন wsi-kristaline 18c

ওয়ালটন wsi-kristaline 18c এসি টির প্রাইস প্রায়ই 66 হাজার 500 টাকা। ওয়ালটন wsi-kristaline 18c এসি টির বিটি ইউ ক্ষমতা 18000। এটি ওয়ালটনের দেড় টন এর একটি এসি।

ওয়ালটন wsn- kristaline 18a

ওয়ালটন wsn- kristaline 18a একটি নন ইনভার্টার এসি। এটি দেড় টন এর একটি এসি। এসি টির বিটিইউ ক্ষমতা 18000 সম্পন্ন। ওয়ালটন wsn- kristaline 18a যার ওয়াট ক্ষমতা বাহার 5275 ওয়াট। ওয়ালটন wsn- kristaline 18a মূল্য 51 হাজার ৫০০ টাকা

ওয়ালটন whi-inverna-24c

ওয়ালটন whi-inverna-24c এই এসি টিতে ইনভারনা টেকনোলোজি 2 টন। ওয়ালটন whi-inverna-24c এই এসিতে বিদ্যুৎ বিল অনেক কম আসবে। ওয়ালটন এই এসি তে প্রায় 70 পার্সেন্ট পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল কম আসবে। এই এসিটিতে কম্পসার গ্যারান্টি পাবেন 10 বছর। এই এসি টির প্রাইস পড়বে প্রায় 75 হাজার 900 টাকা।

ওয়ালটন whi-inverna-24c

আগেরটা 2 টন এর এসি ছিল। সেম মডেল কিন্তু এটা দেড় টনের এসি। ওয়ালটন whi-inverna-24c এই এসিটাতে বেশ কিছু সুবিধা পাবেন। যেমন এটা মোবাইল দিয়ে কন্ট্রোল করা যাবে। ওয়ালটন whi-inverna-24c এটা মোবাইল থেকে অন অফ করতে পারবেন। এই এসি টা দেড় টন এর এটা ইনভার্টার এসি। এই এসি টির মূল্য প্রায় 65 হাজার টাকা

ওয়ালটন নন-ইনভার্টার এসির মূল্য কত 2022

ওয়ালটন wsn-21k

ওয়ালটন wsn-21k এসিটি নন ইনভার্টার এসি। ওয়ালটন wsn-21k পৌনে 2 টন। ওয়ালটন wsn-21k এসি টির মূল্য ৫৩ হাজার টাকা

বর্তমান ওয়ালটন এর যেসকল পণ্য বাজারে রয়েছে তা হল।

  • ভেনচুরি
  • রিভারাইন
  • ক্রিস্টালাইন
  • রিভারাইন প্রো

বিভিন্ন ধরনের এসি রয়েছেন। 1 টন এসির মূল্য প্রায় 36 হাজার 500 টাকা হয়ে থাকে। দেড় টন এসির মূল্য হয়ে থাকে প্রায় 45 হাজার 500 টাকা হতে 65 হাজার টাকার মতো। 2 টন এসির মূল্য হয়ে থাকে 75 হাজার টাকার আশেপাশে।

আপনার রুমের জন্য উপযুক্ত এসি বাছাই করুন

যেমনটা আমরা ইতঃপূর্বে উল্ল্যখ করেছি এসি ক্রয়ের পুর্বে আপনার রুমের সাইজ সহ বেশি কয়েকটি ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে। আপনার রুমের জন্য উপযুক্ত এসি সিলেক্ট করার জন্য ওয়ালটনের এসি ক্রয়ের গাইডলাইন টি দেখে আসতে পারেন। আপনার রুমের সাইজ অনুযায়ী এসি সিলেক্ট করতে এখানে ক্লিক করুন।

ওয়ালটন ইনভার্টার এসি কেমন?

আপনারা হয়তো অনেকেই দেখে থাকবেন ইলেকট্রনিক পণ্যের গায়ে ইনভার্টার বা নন ইনভার্টার নাম লেখা থাকে। যেগুলোতে ইনভার্টার নাম লেখা থাকে সে সকল এসি ব্যবহারের সুবিধা বেশি থাকে। যেমন, ইনভার্টার এসি গুলো নিজের চলার গতি পরিবর্তন করতে পারে। ইনভার্টার এসি তে একটি সেন্সর থাকে যেটি তাপমাত্রা অনুযায়ী মোটার কে বন্ধ না করে গতি কমিয়ে দেয় বা প্রয়োজন অনুযায়ী বাড়িয়ে দেয়। মূলত এই কারণেই বিদ্যুৎ বিল ও কম হয়। ইনভার্টার এসি এবং নন ইনভার্টার এসি এর দামের ও বেশ পার্থক্য রয়েছে।

ওয়ালটন নন ইনভার্টার এসি কেমন?

যে সকল ইলেকট্রনিক সামগ্রী এর গায়ে নন ইনভার্টার লেখা থাকে সে সকল ইলেকট্রনিক পণ্য ইনভার্টার ইলেকট্রনিক পণ্যের
চেয়ে কম সুবিধা পাওয়া যায়। নন ইনভার্টার এসি কম্প্রেসার বারবার চালু বন্ধ করে থাকেন মূলত এর কারণেই বিদ্যুৎ বিল বেশি হয়ে থাকে। কিন্তু ইনভার্টার এসি তে বারবার বন্ধ হয়না প্রয়োজন অনুযায়ী কম বা বেশি হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

Leave a Comment