এলজি ছোট ফ্রিজের দাম 2022 । LG mini fridge price in Bangladesh

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা। ফ্রিজ বর্তমানে আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ন অংশে পরিনত হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে বাজারে সব জিনিস মূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি ফ্রিজের মূল্য ও পূর্বের যেকোন সময়ের তুলনায় অনেক বেশি। তাই যাদের বাজেট কম তারা বুঝে উঠতে পারেন না বর্তমানে কোন ফ্রিজটি কম দামের মধ্যে ভালো হবে। সে সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা আজকের আর্টিকেলটি নিয়ে এসেছি।

আজকে ব্লগে আমরা এলজি ছোট ফ্রিজ নিয়ে আলোচনা করবো। বর্তমানে এলজি ছোট ফ্রিজের দাম কেমন এবং কমদামের মধ্যে এলজির কন ফ্রিজটি ভালো হবে এইসব আলোচনা করবো আজকের ব্লগে। আপনারা হয়তো জানেন এলজি মূলত দামি ও ভালো মানের ফ্রিজ বাজারে নিয়ে আসে কিন্তু এলজি ছোট ফ্রিজ ও বানায় যা আমরা অনেকেই জানিনা। আজকের ব্লগটি শুরু থেকে পড়লে এলজি ছোট ফ্রিজের দাম নিয়ে আর কোন প্রশ্ন মনে থাকবে না। চলুন তাহলে মূল আলোচনা শুরু করা যাক।

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম

যেমনটা আমরা বলেছিলাম এলজি মূলত দামি এবং বড় ফ্রিজ বানানোর জন্য বিখ্যাত। কিন্তু এলজির সাবব্র্যান্ড ইকোপ্লাস কোম্পানি মূলত বাজেট ফ্রেন্ডলি ও কমদামে ফ্রিজ বানানোর জন্য বিখ্যাত। আমরা মূলত তুলনামূলক ছোট ফ্রিজ নিয়ে আজকে আলোচনা করবো। চলুন তাহলে এলজি ছোট ফ্রিজের দাম দেখে নেয়া যাক।

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম
ছবি : এলজি ছোট ফ্রিজের দাম

এলজি ছোট ফ্রিজারের দাম – এলজি ১৪২ লিটার ফ্রিজারের দাম

যারা একেবারেই ছোট ফ্রিজার খুজছেন তাদের জন্য এলজির ১৪২ লিটার ফ্রিজার টি ভালো একটি চয়েস হতে পারে। এটি কিন্তু রেফ্রিজারেটর নয় শুধু ফ্রিজার অর্থাৎ শুধু ডিপ ফ্রিজ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। এলজি ১৮২ লিটার ফ্রিজার হিসেবে আমরা পছন্দ করেছি ECO+ BD-142SG Green এই মডেলটি। বর্তমানে বাজারে এলজি ১৪২ লিটার ফ্রিজারটি পাওয়া যাচ্ছে ২০ হাজার টাকায়। নিচে আমরা এই ফ্রিজের কিছু স্পেশাল ফিচার নিয়ে আলোচনা করবো যেনো আপনার ডিসিশন নিতে সুবিধা হয়।

  • মডেল – ECO+ BD-142SG Green
  • ব্র্যান্ড –  ইকো প্লাস ECO+
  • দাম – ২০,০০০ টাকা
  • কালার – গ্রিন
  • গ্রস আয়তন – ১৪২ লিটার
  • নেট আয়তন –  ১৩৬ লিটার
  • রেফ্রিজারেটরের আয়তন – ০ লিটার (রেফ্রিজারেটর পার্ট নেই। এটা শুধু ফ্রিজার)
  • ফ্রিজেরের আয়তন (ডিপ ফ্রিজ) –  ১৩৬ লিটার
  • দরজার ধরন – ফোমিং ডোর
  • পাওয়ার ভোল্টেজ – 220~240 / 50Hz
  • ইন্টেরিয়র লাইট –  এলইডি লাইট
  • কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি – ১০ বছর
  • সার্ভিস ওয়ারেন্টি – ২ বছর

যারা কম দামের মধ্যে ভালোমানের ফ্রিজার চাচ্ছেন তারা নিসন্দেহে এই ফ্রিজারটি নিতে পারেন। কুরবানির মাংস রাখার জন্য বা অন্যান্য কাজের জন্য এই ফ্রিজারটি ভালো একটি অপশন হতে পারেন। তাই আপনি যদি ২০ হাজার টাকার মধ্যে ভালো মানের ফ্রিজার নিতে চান তাহলে ECO+ BD-142SG Green এই ফ্রিজটি নিতে পারেন। ফ্রিজারটি নিয়ে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম – এলজি ১৭০ লিটার ফ্রিজের দাম

এলজি সবচেয়ে ছোট রেফ্রিজারেটরটির সাইজ হচ্ছে ১৭০ লিটার। Eco+ BCD-170 FL GD Brown ফ্রিজটি বাজারে নিয়ে এসেছে এলজির সাবব্র্যান্ড একোপ্লাস। বর্তমানে বাজারে ফ্রিজটি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ২২ হাজার টাকায়। ফ্রিজটির দাম কম হলেও বাজারের অন্যান্য দামি ফ্রিজের প্রায় সব সুবিধা ই আছে এই ফ্রিজটিতে। নিচে আমরা এই ফ্রিজের কয়েকটি স্পেশাল ফ্রিচার বর্ননা করার চেষ্টা করছি যাতে আপনিন একটি ক্লিয়ার ধারনা পেয়ে যান ফ্রিজটি নিয়ে।

  • মডেল – Eco+ BCD-170 FL GD Brown
  • ব্র্যান্ড –  ইকো প্লাস ECO+
  • দাম – ২২,০০০ টাকা
  • কালার – ব্রাউন
  • গ্রস আয়তন – ১৯০ লিটার
  • নেট আয়তন –  ১৭০ লিটার
  • রেফ্রিজারেটরের আয়তন – ১০১ লিটার
  • ফ্রিজেরের আয়তন (ডিপ ফ্রিজ) –  ৬৯ লিটার
  • দরজার ধরন – গ্লাস ডোর
  • পাওয়ার ভোল্টেজ – 220~240 / 50Hz
  • ইন্টেরিয়র লাইট –  এলইডি লাইট
  • কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি – ১০ বছর
  • সার্ভিস ওয়ারেন্টি – ২ বছর

এলজি বরাবর কাস্টমার সার্ভিসের দিকে সেরা। তাই আপনার বাজেট যদি হয়ে থাকে ২২ হাজারের আশেপাশে তাহলে এই ফ্রিজটি নিশ্চিন্তে নিতে পারেন। Eco+ BCD-170 FL GD Brown মডেলের ফ্রিজটি নিয়ে বিস্তারিত জানতে এখানে বাটারফ্লাই গ্রুপের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট ভিজিট করুন।

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম – এলজি ১৯৫ লিটার ফ্রিজের দাম

এলজি ছোট রেফ্রিজারেটরের সাইজ শুরু হয় ১৯০ লিটার আয়তন থেকে। কিন্তু আপনার যদি আরেকটু বড় ফ্রিজের প্রয়োজন হয় তাহলে এলজি ১৯৫ লিটার রেফ্রিজারেটর টি ক্রয় করতে পারেন। এলজি ১৯৫ লিটার ফ্রিজ হিসেবে আমরা চয়েস করেছি ECO+ BCD-195 REC GD Magnolia Brown এই মডেলটি। বর্তমানে বাজারে এই মডেলটি পাওয়া যাচ্ছে ২৫ হাজার টাকায়। এই মডেলটি বিশেষত্ব হচ্ছে এই সুন্দর কালার ও ডিজাইন। যারা কমদামের মধ্যে সুন্দর ডিজাইনের একটি ফ্রিজ কিনতে চান তাদের জন্য এই ফ্রিজটি ভালো একটি পছন্দ হতে পারে। নিচে আমরা এই ফ্রিজের কিছু ফিচার উল্লেখ করার চেষ্টা করছি যাতে আপনার সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হয়।

  • মডেল – ECO+ BCD-195 REC GD Magnolia Brown
  • ব্র্যান্ড –  ইকো প্লাস ECO+
  • দাম – ২৫,০০০ টাকা
  • কালার – ব্রাউন, মঙ্গোলিয়া
  • গ্রস আয়তন – ২১৫ লিটার
  • নেট আয়তন –  ১৯৫ লিটার
  • রেফ্রিজারেটরের আয়তন – ১২২ লিটার
  • ফ্রিজেরের আয়তন (ডিপ ফ্রিজ) –  ৭৩ লিটার
  • দরজার ধরন – গ্লাস ডোর
  • পাওয়ার ভোল্টেজ – 220~240 / 50Hz
  • ইন্টেরিয়র লাইট –  এলইডি লাইট
  • কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি – ১০ বছর
  • সার্ভিস ওয়ারেন্টি – ২ বছর

যেমনটা আমরা বলেছিলাম এই ফ্রিজটির বিশেষত্ব হচ্ছে এর ডিজাইন ও কালার। বর্তমানে বাজারে এই ফ্রিজটি পাওয়া যাচ্ছে ব্রাউন ও মঙ্গোলিয়া এই দুটি কালারে। আর এলজির কাস্টমার সার্ভিস বরাবর ই খুব ভালো তাই আপনার ফ্রিজের সার্ভিস নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আপনার বাজেট যদি হয়ে থাকে ২৫ হাজার তাহলে আপনি এই ফ্রিজটি নিয়ে নিতে পারেন কোন সমস্যা ছাড়াই। ফ্রিজটি নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। 

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম – এলজি ২০২ লিটার ফ্রিজের দাম

উপরে আমরা ১৭০ লিটার এবং ১৯৫ লিটার ফ্রিজ নিয়ে আলোচনা করেছি। কিন্তু যাদের ৪/৫ সদস্যের পরিবার তাদের হয়তো আরেকটু বড় ফ্রিজের প্রয়োজন পড়ে সেক্ষেত্রে এলজি ২০২ লিটারের ফ্রিজটি আপনার জন্য ভালো একটি অপশন হতে পারে। বর্তমানে বাজারে এলজি কোম্পানির অনেকগুলো ২০২ লিটারের ফ্রিজ রয়েছে তবে আমরা ECO+ BCD-202 REC GD Magnolia Marron এই মডেলটি পছন্দ করেছি। এর কারন হচ্ছে সব কিছু বিবেচনার এই দামে এই মডেলটি আমাদের কাছে ভালো মনে হয়েছে। বর্তমানে এই ফ্রিজটি বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ২৬ হাজার টাকায়। নিচে আমরা এই ফ্রিজের কিছু স্পেশাল ফিচার নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করছি যাতে আপনার ডিসিশন নিতে সুবুধা হয়।

  • মডেল – ECO+ BCD-202 REC GD Magnolia Marron
  • ব্র্যান্ড –  ইকো প্লাস ECO+
  • দাম – ২৬,০০০ টাকা
  • কালার – মারুন, মঙ্গোলিয়া
  • গ্রস আয়তন – ২১২ লিটার
  • নেট আয়তন –  ২০২ লিটার
  • রেফ্রিজারেটরের আয়তন – ১১৩ লিটার
  • ফ্রিজেরের আয়তন (ডিপ ফ্রিজ) –  ৯৫ লিটার
  • দরজার ধরন – গ্লাস ডোর
  • পাওয়ার ভোল্টেজ – 220~240 / 50Hz
  • ইন্টেরিয়র লাইট –  এলইডি লাইট
  • কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি – ১০ বছর
  • সার্ভিস ওয়ারেন্টি – ২ বছর

এছাড়াও ২২০ লিটারের আরো বেশ কয়েকটি ভালো মডেল পাওয়া যাচ্ছে সরাসরি এলজির শোরুমে। আমাদের এখান থেকে আইডিয়া নেয়ার পর আপনি চাইলে সরাসরি এলজির শোরুমে গিয়ে নিজে দেখে ফ্রিজ চয়েস করতে পারেন। ECO+ BCD-202 REC GD Magnolia Marron এই ফ্রিজটি নিয়ে আরো বিস্তারিত জানতে এলজি বাটারফ্লাই কোম্পানির অফিশিয়াল ওয়েবসাইট ব্রাউজ করুন এখানে ক্লিক করে।

এলজি ছোট ফ্রিজের দাম – এলজি ২২৫ লিটার ফ্রিজের দাম

উপরে আমরা ২০২ লিটার ফ্রিজ নিয়ে আলোচনা করেছিলাম যা আপনি ২৬ হাজার টাকায় কিনতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি আর মাত্র ১৫০০ টাকা অতিরিক্ত দিতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনি এলজি ২২৫ লিটারের একটি ফ্রিজ নিতে পারবেন আর এই ফ্রিজটি আপনার পরিবারের জন্য ভালো একটি চয়েস হতে পারে। এলজি ২২৫ লিটারের ফ্রিজ হিসেবে আমরা ECO+ 225 LITER VCM REFRIGERATOR BLUE এই মডেলটি পছন্দ করেছি। বর্তমানে বাজারে এই ফ্রিজটি ২৭,৫০০ টাকায় পেয়ে যাবেন। নিচে মডেল সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য দেয়ার চেষ্টা করছি যেনো আপনার ডিসিশন নিতে সুবিধা হয়।

  • মডেল – ECO+ 225 LITER VCM REFRIGERATOR BLUE
  • ব্র্যান্ড –  ইকো প্লাস ECO+
  • দাম – ২৭,৫০০ টাকা
  • কালার – নীল
  • গ্রস আয়তন – ২৩৩ লিটার
  • নেট আয়তন –  ২২৫ লিটার
  • রেফ্রিজারেটরের আয়তন – ১৩৮ লিটার
  • ফ্রিজেরের আয়তন (ডিপ ফ্রিজ) –  ৯৫ লিটার
  • দরজার ধরন – গ্লাস ডোর
  • পাওয়ার ভোল্টেজ – 220~240 / 50Hz
  • ইন্টেরিয়র লাইট –  এলইডি লাইট
  • কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি – ১০ বছর
  • সার্ভিস ওয়ারেন্টি – ২ বছর

২২৫ লিটারের ফ্রিজ বাজারে বর্তমানে অনেক আছে। তবে এই ফ্রিজটি দাম হিসেবে আমাদের কাছে ভ্যালু ফর মানি মনে হয়েছে। আপনি চাইলে এই ফ্রিজটি নিইয়ে বিস্তারতি তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে দেখে নিতে পারেন। বিস্তারিত জানতে এখনে ক্লিক করুন। 

এলজি ছোট ডিপ ফ্রিজের দাম

Large
ছবি: এলজি ছোট ডিপ ফ্রিজের দাম

যদিও আমাদের আজকের আলোচনা এলজি ছোট ফ্রিজের দাম নিয়ে কিন্ত আমাদের মধ্যেই অনেকেই আছেন যারা কুরবানির মাংশ রাখার জন্য বা অন্যান্য প্রয়োজনে ছোট ডিপ ফ্রিজ কিনতে চান তাদের জন্য সংক্ষেপে এলজি ছোট ডিপ ফ্রিজের দাম নিয়ে আলোচনা করবো।

  • এলজি ১৩৮ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ৪০ হাজার টাকা।
  • এলজি ১৯০ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ৪৫ হাজার টাকা।
  • এছাড়াও আরেকটু ভালো মানের নিতে চাইলে এলজি অন্য একটি ১৯০ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম পড়বে ৪৭ হাজার টাকা।

ফ্রিজ ক্রয়ের পূর্বে যা দেখে নিবেন

বর্তমানে বাজারে অনেক কোম্পানির ফ্রিজ পাওয়া যায় আর আমরা ফ্রিজ ক্রয়ের পূর্বে কনফিউজড হয়ে যাই কোন ফ্রিজটা ক্রয় করা উচিত। তাই আমরা চেষ্টা করবো কিছু টিপস শেয়ার করছে যেনো আপনি নতুন ফ্রিজ ক্রয়ের সময় সাবধান হোন এবং ভালো ফ্রিজটি চিনে নিতে পারেন।

  1. কোম্পানি – ফ্রিজ ক্রয়ের পূর্বে ফ্রিজের ব্র্যান্ড বা কোম্পানি অবশ্যই দেখে নেয়া উচিত। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় নাম না জানা কোন এক কোম্পানির ফ্রিজ ক্রয় করে নিয়ে আসলেন তারপর কয়দিন পর পর ই নষ্ট হওয়ার ঝামেলা চলতে থাকে। তাই ফ্রিজ ক্রয়ের পূর্বে ফ্রিজের ব্র্যান্ড অবশ্যই দেখে নিবেন।
  2. ওয়ারেন্টি – সাধারনত ভালো কোম্পানি গুলো তাদের ফ্রিজের সাথে ১০ বছরের ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকে। আর ওয়ালটন কোম্পানি তাদের পন্যের সাথে ১২ বছরের ওয়ারেন্টি দেয়। তাই ফ্রিজ ক্রয়ের পূর্বে অবশ্যই ওই কোম্পানির ওয়ারেন্ট সিস্টেম দেখে নেয়া উচিত।
  3. কাস্টমার সার্ভিস – ফ্রিজ ক্রয়ের সময় সার্ভিস ওয়ারেন্টি পাবেন। অর্থাৎ ফ্রিজ নষ্ট হয়ে গেলে কোম্পানি থেকে লোক এসে ঠিক করে দিয়ে যাবে। কিন্তু কত দ্রুত ঠিক করে দিবে সেটা আপনাকে যাছাই করতে হবে।

এলজি ছোট ফ্রিজ

আমরা আজকের আলোচনার এলজি ছোট ফ্রিজ ও এলজি ছোট ফ্রিজের দাম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। আশা করছি এরপর আর এই ব্যাপারে কোন সমস্যা থাকবে না। ব্লগটি ভালো লাগলে আপনার প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করুন। ধন্যবাদ

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

Leave a Comment