চুল পড়া বন্ধের কার্যকরী পদ্ধতি। চুল পড়া কমানো শতভাগ কার্যকরী উপায়।

আচ্ছালামুআলাইকুম হ্যালো বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন। আশা করি যে, সকলেই ভাল আছেন প্রতি বারের মতো আজকে ও আমরা আমাদের এই ওয়েবসাইটে নতুন একটা আর্টিকেল নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হলাম। আশা করি যে, আমাদের আজকের আর্টিকেলটি পড়লে আপনাদের অনেক উপকার হবে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক আমাদের আজকের বিষয়বস্তু কি এবং আমাদের আজকের আর্টিকেল এর ভিতরে কোন কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে।

আমাদের আজকের আর্টিকেলে আপনারা জানতে পারবেন যে, চুল পড়া বন্ধের উপায় এবং চুল পড়া কমানোর উপায় সম্পর্কে অনেকেই আছে বর্তমান সময় যাদের মাথার চুল পড়ে যায় বা চুল থাকে না দেখা যায়। অনেক সময়ে আবার দেখা যায় যে, আস্তে আস্তে করে মাথার সব চুল পড়ে যেতে থাকে। কিন্তু অনেক কিছু করার পরে ও কোন কাজ হচ্ছে না মানে অনেক ডাক্তার বা অনেক ওষুধ খাওয়ার পরেও কোন ধরনের ফল পাচ্ছেন না।

তাদের জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আর আপনি ও যদি মাথার চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভুগে থাকেন বা চুল পড়া বন্ধের উপায় সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আমাদের এই আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের জন্য। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনারা যদি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত বা সম্পূর্ণ পড়েন। তাহলে আশা করি যে, আপনারা এই সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন। আর এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়ে যেতে পারবেন তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে আমাদের আজকের আলোচনা শুরু করা যাক।

আপনার মাথার চুলে যদি সাধারন কোন সমস্যা হয়ে থাকে। তাহলে সেক্ষেত্রে আপনারা ব্যবহার করতে পারেন আলুর রসের হেয়ার প্যাক। আর এটা যদি আপনার ব্যবহার করেন তাহলে আপনার চুল পড়া কমে যাবে এবং তার সাথে সাথে আপনার মাথার চুল শক্ত হবে। আর তার সাথে সাথে  মজবুত হবে ও ঝলমলে হয়ে যাবে আপনাদের চুল। চুল পড়া বন্ধ করার জন্য কিন্তু আলুর রস অনেক কার্যকরী একটি উপাদান। আপনার এটাকে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। চুল পড়া বন্ধের উপায় অনেক গুলো রয়েছে। সেগুলো সম্পর্কে আমাদের আজকের আর্টিকেলে আপনাদের সাথে আলোচনা করব।

আপনারা ইচ্ছা করলে কিন্তু ঘরোয়া পদ্ধতিতে ও আপনাদের মাথার চুল পড়া কমাতে পারবেন । এখন আমরা সেই বিষয় সম্পর্কে আপনাদের সাথে বিস্তারিত বলবো আসুন জেনে নেই।

চুল পড়া বন্ধের উপায়

মেথি: অর্ধেক নারিকেল তেলের সাথে আপনারা ১ চা চামচ মেথি মিশিয়ে নিবেন।  তারপর সেটাকে অল্প কিছুক্ষণ মানে কয়েক মিনিট পর্যন্ত ভালোভাবে করে ফুটিয়ে নেবেন। ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার পরে আপনারা আপনাদের মাথার চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করতে থাকবেন। ১ ঘণ্টা অপেক্ষা  করা হয়ে গেলে আপনারা  মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে  ভালোভাবে করে ধুয়ে নেবেন।

অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন : প্রত্যেক সপ্তাহে আপনারা কবে করে হলে ও ২ দিন করে অ্যালোভেরা জেল আপনাদের মাথার চুলে লাগাবেন। অ্যালোভেরার পাতা থেকে আপনারা জেল সংগ্রহ  করে নিবেন। এরপরে আপনারা আপনাদের মাথায় চুলের আগা থেকে সম্পূর্ণভাবে একদম গোড়া পর্যন্ত লাগাবেন। ২০ মিনিট অপেক্ষা তারপরে আপনারা ধুয়ে  ফেলবেন ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে। চুল পড়া বন্ধ  হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে কিন্তু আপনাদের চুল আগের থেকে আর ও ঝলমলে হয়ে যাবে।

মেহেদি এবং সরিষার তেল ব্যবহার করবেন: ২৫০ মিলি সরিষার তেলের ভিতরে আপনারা ২০টি মেহেদি পাতা দিয়ে ফুটিয়ে  নিবেন। ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার পরে আপনাদেরকে যে কাজটি করতে হবে সেটি হল, আপনাদেরকে ভালোভাবে ম্যাসাজ করা লাগবে আপনাদের চুলের গোড়ায়। তারপর আপনারা ২০ মিনিট অপেক্ষা  করবেন ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিবেন। প্রতি সপ্তাহে আপনারা কয়েকদিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারেন এই তেল। তাহলে আপনারা অনেক ভালো উপকার পাবেন।

পেঁয়াজের রস ব্যবহার করবেন : চুল পড়া বন্ধ  করার জন্য কিন্তু এটা একটা কার্যকরী পদ্ধতি হচ্ছে আপনারা পেঁয়াজের রস ব্যবহার করবেন। পেঁয়াজের রস একদম সরাসরি ভাবে কিন্তু আপনাদের চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে  লাগাতে হবে। ঝাঁঝালো গন্ধ দূর করার জন্য আপনাদেরকে অল্প কিছু ফটো এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নেওয়া লাগবে। ২০ মিনিট অপেক্ষা  করার পরে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে শ্যাম্পু দিয়ে,তাহলেই হয়ে যাবে।

ডিমের কুসুম  আর মধু : ডিমের কুসুম হাঁটিয়ে নিয়ে এর পরে সেটার সাথে মধু মিশিয়ে নিবেন। মিশ্রণটি চুলে লাগানোর পরে অপেক্ষা করবেন কিছু সময়। আধা ঘণ্টা  পরে আপনারা ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে করে ধুয়ে নিবেন।

তেল : অনেক ধরনের তেল রয়েছে সেগুলো আপনারা একসাথে মিশিয়ে নেবেন। তার পরে প্রত্যেক সপ্তাহে একদিন করে আপনাদের চুলের ভেতরে ম্যাসাজ করবেন। আর আপনাদের চুলে মেশানোর আগে হালকা পরিমাণে গরম করে নিবেন। ম্যাসাজ শেষ করার পরে আপনারা গরম তোয়ালে দিয়ে জড়িয়ে নেবেন আপনাদের চুল। ১৫ মিনিট পরে আপনারা তোয়ালে খুলে অপেক্ষা  করবেন আরো কিছুক্ষণ 10 মিনিট অপেক্ষা করতে পারেন। তারপরে আপনার আপনাদের মাথা শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিবেন।

অলিভ অয়েল, জিরা আর মধু: ১/৪ কাপ অলিভ অয়েলে ১ চা চামচ জিরা ভিজিয়ে রেখে দিবেন ৫ ঘণ্টা পর্যন্ত। তারপর আপনাদেরকে যে কাজটি করতে হবে সেটি হল, মিশ্রণটি ছেঁকে তেল আলাদা করে নিতে হবে। তেলে খানিকটা মধু মিলিয়ে নেবেন আপনাদের চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করবেন এরপরে তাহলেই হবে। ৩০ মিনিট পরে আপনার শ্যাম্পু দিয়ে  আপনাদের মাথা ধুয়ে  ফেলবেন। প্রতি সপ্তাহে  যদি আপনারা একদিন করে ব্যবহার করেন,তাহলে অনেক ভালো ফল পাবেন আশা করি।

প্রতিদিন চুল পানি দিয়ে ধুবেন না: আপনারা গোসল করতে গেলে প্রত্যেকদিন আপনাদের মাথার চুলের ভেতরে পানি লাগাবেন না। দুই দিন পরে এক দিন পর আপনাদের মাথা শ্যাম্পু দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নেবেন, তাহলেই হবে।

আমলকী: চুলের গোঁড়ায় আমলকীর যে তেল আছে সেটা আপনারা ভালোভাবে লাগাবেন। আধা ঘন্টা পর্যন্ত দেখে দিবেন, তারপরে আপনাদেরকে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে  ফেলতে হবে।

নারকেল তেল ব্যবহার করবেন: নারকেল তেল সামান্য পরিমাণে গরম করে নেওয়ার পরে আপনারা আপনাদের মাথায়  চুলের গোঁড়ায় ম্যাসাজ করতে থাকবেন। ১ ঘণ্টা  রাখার পরে ভালোভাবে ধুয়ে নিবেন।

ভিটামিন সি : পেয়ারা, লেবু, কমলা, আনারস, কামরাঙা, কাঁচা মরিচে অনেক বেশি পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। আপনার মাথার চুল বৃদ্ধি এবং মাথার চুল গজানোর জন্য কিন্তু এটা অনেক কার্যকরী একটি পদ্ধতি। ভিটামিন সি খেলে আপনারা  অনেক উপকার পাবেন, তাই আপনারা সবসময় এই ভিটামিন সি এর ভেতরে যে সকল ফল গুলো রয়েছে সেগুলো উপরে বলেছি সেগুলো আপনারা খাওয়ার চেষ্টা করবেন সবসময়।

হট অয়েল ট্রিটমেন্ট:  কয়েক ধরনের তেল একসাথে করে মিশিয়ে তারপরে গরম করে নিবেন। কুসুম গরম তেল আপনাদের চুলের ভেতরে ম্যাসাজ করতে থাকবেন। ১ টি তোয়ালে গরম পানিতে ডুবিয়ে নিংড়ে নিবেন। চুল জড়িয়ে রাখবেন গরম তোয়ালে দিয়ে। ১৫ মিনিট পরে আপনারা তোয়ালে খুলে ১০ মিনিট অপেক্ষা করবেন। চুল ধুয়ে নেওয়ার পরে ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।

যে খাবারগুলো আপনাদেরকে খেতে হবে জেনে নিন

যে সকল খাবার গুলো আপনারা খাবেন জানুন  

বেশি পরিমাণে প্রোটিনসমৃদ্ধ আর আঁশজাতীয় খাবার আপনার খাওয়া লাগবে ।

শাকসবজি আর তাজা ফল  খেতে হবে প্রত্যেক দিন। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডযুক্ত খাবার  রাখবেন। অ্যাভোকাডো, ডিম, গাজর এই খাবারগুলো থেকে আপনারা পাবেন এই উপাদান।

চুল পড়ার কারণ (চুল পড়া বন্ধের উপায়)

প্রত্যেকদিন ৫০ থেকে ১০০টি চুল ঝরে পড়া এখন কিন্তু একটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু এর থেকে বেশি পরিমাণে চুল ঝরে যদি পৌঁছে থাকে। তাহলে কিন্তু সেটা কোন রকম ভাবেই স্বাভাবিক বিষয় নয়। চুল বিভিন্ন কারণে আমাদের মাথা থেকে পড়ে যেতে পারে। আর তার ভেতরে কিছু উল্লেখযোগ্য কারণ আপনাদের সাথে শেয়ার করা হলো।

১। আপনাদের যদি কারো এই ধরনের সমস্যা থাকে , তাহলে দেখা যায় যে অনেক সময় আপনাদের সমস্যা হতে পারে।

২। আপনাদের শরীরে যদি সুষম খাদ্যের অভাব থাকে , তাহলে মাথার চুল পড়ে যেতে পারে।

৩। অতিরিক্ত পরিমাণে যদি আপনারা ওষুধ খান তাহলে, কিন্তু আপনাদের মাথার চুল পড়ার একটি কারণ হতে পারে।

৪। মাথার ত্বকে ইনফেকশনের যদি থাকে তাহলে সে কারণে হতে পারে।

৫। হরমোনের পরিবর্তন যদি হয়ে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে দেখা যায় যে মাথার চুল পড়ে যায়।

৬। আপনাদের চুলের ভেতরে যদি অতিরিক্ত পরিমাণে কেমিক্যাল ব্যবহার করেন তাহলে সেই ক্ষেত্রেও এই সমস্যা হয়।

৭। চুল টানলে বা শক্ত করে  যদি বেঁধে রাখেন।

৮। থাইরয়েডের সমস্যা হলেও এ রকমের হয়।

৯। ভেজা অবস্থায়  চুল  যদি আপনারা চুরুনী দিয়ে আছড়ান তাহলে ও হতে পারে।

১০। বেশি পরিমাণে যদি আপনারা দুশ্চিন্তা করেন তা হলেও আপনাদের মাথার চুল পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আমাদের শেষ কথা

তাহলে আজকে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে সেটা অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন। আমাদের আজকের এই মূল বিষয় ছিল চুল পড়া বন্ধের উপায় এবং চুল পড়া কমানোর উপায় কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা ।

আশা করি আমাদের আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে অনেক ভালো লেগেছে আর অনেক কিছু আমাদের আজকের আর্টিকেল থেকে জানতে পেরেছেন। এই রকমের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়ার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন। আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিনিয়ত ভাবেই এরকম এর বিভিন্ন তথ্য আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করা হয়ে থাকে।

আর আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের ফেসবুক একাউন্টে বা আপনাদের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টগুলোর ভিতরে শেয়ার করে দিবেন । তাহলে আপনার মত যারা এই বিষয় সর্ম্পকে জানতে চায় তারাও জানতে পারবে।  আপনার একটা শেয়ার এর কারণে দেখা যাবে যে আরও কয়েকজন মানুষ জানতে পারবে । তাই অবশ্যই আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিবেন।

ইজি টেকিং - একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে বাংলা ভাষায় শিক্ষা ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষায় সবার মাঝে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের লক্ষ্য।

Leave a Comment